ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের বিভিন্ন অধিবেশন ও নির্বাচিত সভাপতি

ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের প্রতিষ্ঠাতা : অ্যালান অক্টোভিয়ান হিউম ১৮৮৫ সালে ভারতের জাতীয় কংগ্রেস  করেন । অনেকে দাদাভাই নওরোজি -কে জাতীয় কংগ্রেস প্রতিষ্ঠার কৃতিত্ব দিতে চান, কিন্তু সমসাময়িক ওপর উল্লেখযোগ্য কংগ্রেস নেতা দীনশা ওয়াচা - মতে কংগ্রেসের প্রকৃত প্রতিষ্ঠা অ্যালান অক্টোভিয়ান হিউম ।


ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের বিভিন্ন অধিবেশন ও নির্বাচিত সভাপতি
সাল (খ্রি :) স্থান নির্বাচিত সভাপতি অধিবেশনের গুরুত্ব
১৮৮৫ বোম্বাই উমেশচন্দ্র বন্ধোপাধ্যায় প্রথম অধিবেশন, সদস্য সংখ্যা ৭৮
১৮৮৬ কলকাতা  দাদাভাই নওরোজি -
১৮৮৭ মাদ্রাস বদরুদ্দিন তায়েবজি প্রথম মুসলিম সভাপতি
মুসলিম সম্প্রদায়কে কংগ্রেসে
যোগদানের জন্য আহ্বান জানান
১৮৮৮ এলাহাবাদ জর্জ ইয়ুল প্রথম ইংরেজ হিসাবে সভাপতিত্ব করেন
১৮৮৯ বোম্বাই উইলিয়াম ওয়েদারবার্ন -
১৮৯০ কলকাতা ফিরোজ শাহ মেহতা -
১৮৯১ নাগপুর আনন্দ চারলু -
১৮৯২ এলাহাবাদ উমেশচন্দ্র বন্ধোপাধ্যায় -
১৮৯৩ লাহোর দাদাভাই নওরোজি -
১৮৯৪ মাদ্রাস আলফ্রেড ওয়েব -
১৮৯৫ পুনা সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় -
১৮৯৬ কলকাতা রহিমতুল্লাহ এম. সায়ানী এই অধিবেশনে সর্ব প্রথম 'বন্দে মাতরম'
গানটি গাওয়া হয়
১৮৯৭ অমরাবতী সি. শঙ্করন নায়ার -
১৮৯৮ মাদ্রাস আনন্দ মোহন বসু -
১৮৯৯ লখনৌ রোমেশ চন্দ্র দত্ত -
১৯০০ লাহোর এন. জি. চন্দাবরকর -
১৯০১ কলকাতা দীনশা ওয়াচা -
১৯০২ আহমেদাবাদ সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় -
১৯০৩ মাদ্রাস লালমোহন ঘোষ -
১৯০৪ বোম্বাই স্যার হেনরি কটন -
১৯০৫ বেনারস গোপাল কৃষ্ণ গোখলে ১৯০৫  সালে বঙ্গভঙ্গের বিরুদ্ধে
আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান
জানানো হয় 
১৯০৬ কলকাতা দাদাভাই নওরোজি তিনি তৃতীয় বারের জন্য কংগ্রেসের
সভাপতি হন । তিনি কংগ্রেসের
 চরমপন্থী মনোভাবাপন্ন ছিলেন
১৯০৭ সুরাট রাস  বিহারি বসু এই অধিবেশনের চরম পন্থী ও
নরম পন্থী গোষ্ঠীর মধ্যে বিভেদ
চরম আকার ধারণ করে ও কংগ্রেস
২ ভাগে বিভক্ত হয়ে যায়
১৯০৮ মাদ্রাস রাস বিহারি বসু -
১৯০৯ লাহোর মদন মোহন মালাভিয়া এই অধিবেশনের মুখ্য আলোচনা
ভারতীয় কাউন্সিল এক্ট, ১৯০৯ 
১৯১০ এলাহাবাদ উইলিয়াম ওয়েদারবার্ন -
১৯১১ কলকাতা বিজন নারায়ণ দার এই অধিবেশনে সর্ব প্রথম রবীন্দ্রনাথ
ঠাকুরের 'জন গণ মন' গানটি গাওয়া হয়
১৯১২ পাটনা রঘুনাথ নরসিংহ মুধোলকর -
১৯১৩ করাচি সৈয়দ মোহাম্মদ বাহাদুর -
১৯১৪ মাদ্রাস ভূপেন্দ্র নাথ বসু 4
১৯১৫ বোম্বাই সত্যেন্দ্র প্রসন্ন সিনহা 4
১৯১৬ লখনৌ অম্বিকা চরণ মজুমদার মুসলিম লীগের সাথে কংগ্রেসের 
যৌথ অধিবেশন হয় ও লখনউ চুক্তি 
স্বাক্ষরিত হয়
১৯১৭ কলকাতা অ্যানি বেসান্ত কংগ্রেসের প্রথম মহিলা সভাপতি
১৯১৮ বোম্বাই ও দিল্লী সৈয়দ হাসান ইমাম
(বোম্বে) ও মদন
মোহন মালাভিয়া (দিল্লী)
একই বছর ২ টি অধিবেশন হয়
১৯১৯ অমৃতসর মতিলাল নেহরু -
১৯২০ নাগপুর সি বিজয়রাগাবাছারিয়ার -
১৯২১ আহমেদাবাদ চিত্তরঞ্জন দাশ হাকিম আজমল খান (সহকারী সভাপতি)
১৯২২ গয়া চিত্তরঞ্জন দাশ -
১৯২৩ দিল্লী আব্দুল কালাম আজাদ -
১৯২৪ বেলগাম মহাত্মা গান্ধী -
১৯২৫ কানপুর সরোজিনী নাইডু কংগ্রেসের প্রথম ভারতীয় মহিলা সভাপতি
১৯২৬ গৌহাটি এস শ্রীনিবাস আয়েঙ্গার -
১৯২৭ মাদ্রাস মুখতার আহমেদ আনসারী -
১৯২৮ কলকাতা মতিলাল নেহেরু এই অধিবেশনে অল ইন্ডিয়া ইয়ুথ কংগ্রেস
গঠিত হয়েছিল
১৯২৯ লাহোর জওহরলাল নেহেরু এই অধিবেশনে 'পূর্ণ স্বরাজ' ঘোষণা
করা হয় ও ২৬সে জানুয়ারী 'পূর্ণ স্বরাজ'
-এর জন্য স্বাধীনতা দিবস পালনের কথা
 বলা হয়
১৯৩০ - - এই বছর কোনো অধিবেশনে হয় না 
১৯৩১ করাচি বল্লভভাই প্যাটেল এই অধিবেশনে মৌলিক অধিকার ও
জাতীয় অর্থনৈতিক অগ্রগতির সমাধানের
সংকল্প নেওয়া হয় । গান্ধী - আরউইন চুক্তি
-কে সমর্থন করা হয় । গান্ধীজি ২নদ রাউন্ড
টেবিল বৈঠকে যাওয়ার জন্য মনোনীত হন
১৯৩২ দিল্লী অমৃত রণখোরদাস শেঠ -
১৯৩৩ কলকাতা নীলি সেনগুপ্ত ইনি হলেন জাতীয় কংগ্রেসের প্রথম
বাঙালি মহিলা সভাপতি
১৯৩৪ বোম্বাই রাজেন্দ্র প্রাসাদ -
১৯৩৬ লখনৌ জওহরলাল নেহেরু -
১৯৩৭ ফীজপুর জওহরলাল নেহেরু এটি কংগ্রেসের কোন গ্রামে অনুষ্ঠিত
প্রথম অধিবেশন
১৯৩৮ হরিপুরা সুভাষ চন্দ্র বসু জওহরলাল নেহরুর অধীনে জাতীয়
পরিকল্পনা কমিটি গঠিত হয়
১৯৩৯ ত্রিপুরা সুভাষ চন্দ্র বসু এই অধিবেশনে সুভাষ চন্দ্র বসু বিপুল
ভোট জয়ী হয়েছিল, কিন্তু গান্ধীজি
পট্টভী সীতারামায়াকে সমর্থন করার
জন্য তিনি পদত্যাগ করেন । তার পর
রাজেন্দ্র প্রসাদ নিযুক্ত হন ।
১৯৪০ রামগড় আব্দুল কালাম আজাদ -
১৯৪১-১৯৪৫ - - কংগ্রেসের সকল নেতা গ্রেপ্তার
হবার জন্য এই সময় কোন
অধিবেশনে হয় না 
১৯৪৬ মিরাট আচার্য কৃপালানী স্বাধীনতার আগে অনুষ্ঠিত
কংগ্রেসের শেষ অধিবেশন
১৯৪৮ জয়পুর পট্টভী সীতারামায়া স্বাধীনতার পরে অনুষ্ঠিত কংগ্রেসের
প্রথম অধিবেশন